দেওয়ানী আদালতের এখতিয়ার

বাংলাদেশে দেওয়ানী আদালতের এখতিয়ার সমূহ জানা থাকলে আপনি খুব সহজেই বুঝতে পারবেন কোন আদালতে কোন দেওয়ানী মামলাটি করতে হবে। এতে করে আপনার সময় এবং শ্রম সবই সাশ্রয় হবে। অনেক সময় নবীন আইনজীবীরা এই ভুল করে থাকে ফলশ্রুতিতে আদালত মামলাটি ফেরত দিয়ে সঠিক আদালতে মামলা দায়ের করতে বলে। তাই আদালতের এই এখতিয়ার সম্পর্কে জানা খুবই গুরূত্বপূর্ন।

আজকের আলোচনায় আমরা দেওয়ানী আদালতের এখতিয়ার বা ক্ষমতা বা সীমাবদ্ধতা সম্পর্কে জানবোঃ

ক) জেলা জজ আদালত এর এখতিয়ারঃ

১. জেলা জজ আদালতের রিভিশন শুনানীর এখতিয়ার রয়েছে।

২. দেওয়ানী বিষয়বস্তুর আপীল যার মূল্যমান সর্বোচ্চ পাঁচ কোটি টাকা পর্যন্ত সেই সমস্ত মামলার আপীল জেলা জজ গ্রহন করতে পারবেন।

৩. প্রবেট সংক্রান্ত বিষয়াদি জেলা জজ বিচার করতে পারবেন। এছাড়াও আরো নানা ইস্যুতে জেলা জজ মামলা গ্রহন করতে পারবেন।

খ) অতিরিক্ত জেলা জজ আদালত এর এখতিয়ারঃ

জেলা জজ কর্তৃক প্রেরিত সকল মামলাসমূহের বিচার অতিরিক্ত জেলা জজ আদালত কর্তৃক সম্পন্ন হয়ে থাকে।

গ) যুগ্ম জেলা জজ আদালত এর এখতিয়ারঃ

১) সকল প্রকার দেওয়ানী মামলা যার মূল্যমান পচিঁশ লক্ষ টাকা থেকে অসীম তা যুগ্ন জেলা জজ বিচার করতে পারবেন।

২) উত্তরাধিকার সংক্রান্ত বিষয়াদি যুগ্ন জেলা জজ বিচার করতে পারবেন।

৩) রিভিশন- জেলা জজ কর্তৃক প্রেরিত মামলাসমূহ যুগ্ন জেলা জজ বিচার করতে পারবেন।

 ৪) আপীল- জেলা জজ কর্তৃক প্রেরিত মামলাসমূহ যুগ্ন জেলা জজ বিচার করতে পারবেন।

ঘ) সিনিয়র সহকারী জজ আদালত এর এখতিয়ারঃ

দেওয়ানী প্রকৃতির মামলার বিচার যার মূল্যমান পনের লক্ষ টাকা থেকে পচিঁশ লক্ষ টাকা পর্যন্ত সিনিয়র সহকারী জজ বিচার করতে পারবেন।

ঙ) সহকারী জজ আদালত এর এখতিয়ারঃ

দেওয়ানী প্রকৃতির সকল মামলার বিচার যার মূল্যমান সর্বোচ্চ পনের লক্ষ টাকা তা এই সহকারী জজ আদালতে করা যাবে।

চ) স্মল কজেস কোর্ট আদালত এর এখতিয়ারঃ

স্মল কজেস আদালত ক্ষুদ্র মামলা নিস্পত্তি করে থাকে যার মূল্যমান সর্বোচ্চ পচিঁশ হাজার টাকা।  

ছ) পারিবারিক আদালত এর এখতিয়ারঃ

পারিবারিক আদালত অধ্যাদেশ,১৯৮৫ অনুযায়ী অত্র আইনের অধীনে দায়েরকৃত পারিবারিক বিষয়াদি সংক্রান্ত বিষয়াদি যথাক্রমে-

১. তালাক

২. দেনমোহর

৩. ভরনপোষন

৪. দাম্পত্য অধিকার পুনরুদ্ধার

৫. নাবালকের অভিভাকত্ব সংক্রান্ত বিষয়াদির মামলার বিচার অত্র আদালতে সম্পন্ন হয়ে থাকে।

আজকের এই আলোচনা আশা করি আপনাদের ভালো লেগেছে। আমাদের এই প্রচেস্টা কে স্বাগত জানিয়ে অথবা আপনার মূল্যবান মতামত দিয়ে আমাদেরকে কমেন্ট করূন।    

Leave a Reply