দেনমোহর নিয়ে জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন

ইসলামী শারীআতে দেনমোহর সম্পর্কে বিশেষভাবে কোন নির্দেশ দেয়া হয়নি, কোন সুস্পষ্ট পরিমাণ ঠিক করে দেয়া হয়নি । তবে এ কথা স্পষ্ট যে, প্রত্যেক স্বামীরই কর্তব্য হচ্ছে তার আর্থিক সামর্থ্য ও স্ত্রীর মর্যাদার প্রতি লক্ষ্য রেখে উভয় পক্ষের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ কোন পরিমাণ নির্দিষ্ট করা । নিম্নে দেনমোহর নিয়ে সাধারণ মানুষের জিজ্ঞাসিত প্রশ্নের উত্তর দেওয়া হলো।

প্রশ্ন : দেনমোহরের পরিমাণ কী হওয়া উচিত ?

উত্তর : ইসলামী শারীআতে দেনমোহর সম্পর্কে বিশেষভাবে কোন নির্দেশ দেয়া হয়নি, কোন সুস্পষ্ট পরিমাণ ঠিক করে দেয়া হয়নি । তবে এ কথা স্পষ্ট যে, প্রত্যেক স্বামীরই কর্তব্য হচ্ছে তার আর্থিক সামর্থ্য ও স্ত্রীর মর্যাদার প্রতি লক্ষ্য রেখে উভয় পক্ষের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ কোন পরিমাণ নির্দিষ্ট করেদেওয়া ।

দেনমোহর এর কোনো পরিমাণ নির্ধারণ করা হয়নি । হানাফি মাজহাবের মতে ১০ দিরহাম হলো ন্যূনতম পরিমান । অর্থাৎ ৩০.৬১৮ গ্রাম রুপা অথবা এর সমপরিমাণ মূল্য , এর চেয়ে কম পরিমাণ মোহর নির্ধারণ করা যাবেনা যদিও স্ত্রী রাজি হয়, তাও শরিয়তের দৃষ্টিতে বৈধ হবে না ।

প্রশ্ন : কোন স্ত্রী যদি মোহরের কিছু অংশ ক্ষমা করে দেয় তার স্বামীকে সেই অংশ কি বৈধ হবে ?

উত্তর :  হ্যাঁ বৈধ হবে , এ ব্যাপারে মহান আল্লাহ বলেন, ‘আর তোমরা স্ত্রীদের খুশিমনে মোহর দিয়ে দাও, তারা যদি খুশি হয়ে তা থেকে অংশ ছেড়ে দেয়, তবে তা তোমরা স্বাচ্ছন্দ্যে ভোগ কর ’।[(সুরা আন নিসা : ৪]

তবে এ ব্যাপারে স্ত্রীর উপর কোন প্রকারের চাপ প্রয়োগ করা যাবে না ।

প্রশ্ন : দেনমোহর ছাড়া কি কোন বিয়ে বৈধ হবে ?

উত্তর : বিনা দেনমোহর এ কোন বিয়ে বৈধ হবেনা । বিয়ের জন্য শর্তহলো দেনমোহর , মহান আল্লাহ তায়ালা কুরআনের দেনমোহরের অধিকার প্রসঙ্গে বলা হয়েছে, ‘হে নবী! আমি আপনার জন্য বৈধ করেছি আপনার স্ত্রীদেরকে, যাদের দেনমোহর আপনি প্রদান করেছেন’। (সুরা আল-আহজাব, আয়াত-৫০)

প্রশ্ন : ইসলামে  বরকতপূর্ণ বিবাহ বলতে কোন বিবাহ কে বুঝানো হয়েছে ?

উত্তর : যে বিয়েতে খরচ কম হয় এবং কোনো জাঁকজমক থাকে না , সে বিবাহ কে বরকতপূর্ণ বিবাহ বলা হয়েছে , বরকতপূর্ণ বিবাহের বর্ণনা দিতে গিয়ে উম্মাহাতুল মুমিনীন হযরত আয়েশা সিদ্দিকা (রা.) বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা.) ইরশাদ করেন, “সবচেয়ে বরকতময় বিয়ে হচ্ছে সুন্নতি বিয়ে, অর্থাৎ যে বিয়েতে খরচ কম হয় এবং কোনো জাঁকজমক থাকে না।”-[মিশকাত শরিফ]

প্রশ্ন : যদি কোনো ব্যক্তি দেনমোহর অনাদায়ের ইচ্ছা নিয়ে বিয়ে করে তা হলে ইসলামে এর বিধান কি?

উত্তর : রাসূল (সাঃ) বলেছেন, “যে ব্যক্তি কোনো মেয়েকে দেনমোহর দেওয়ার ওয়াদায় বিয়ে করেছে, কিন্তু দেনমোহর দেওয়ার ইচ্ছে নেই, সে কিয়ামতের দিন আল্লাহর নিকট ব্যাভিচারী হিসেবে দাঁড়াতে বাধ্য হবে ”

[ মুসনাদে আহমাদ]

প্রশ্ন : স্ত্রী কর্তৃক তালাক দিলে স্বামী দেনমোহর পরিশোধ করবেন কি ?
উত্তর : অবশ্যই, দেনমোহর হলো বিয়ের শর্ত,যার সাথে তালাকের কোন সম্পর্ক নেই ।

প্রশ্ন : তালাক দিলেই কি দেনমোহর পরিশোধ করতে হয় ?
উত্তর : বিয়ের সময় অথবা বিয়ের পর যে কোন সময় দেনমোহর পরিশোধযোগ্য ।

প্রশ্ন : স্বামীর মৃত্যু হলে , স্ত্রী দেনমোহর পাবেন ?
উত্তর : স্বামীর রেখে যাওয়া সম্পত্তি থেকে অন্যান্য দেনা পরিশোধের মতো স্ত্রীর দেনমোহরও পরিশোধ করতে হবে ।

প্রশ্ন : স্ত্রী কি স্বামীর সম্পত্তি দখলে রেখে দেনমোহর আদায় করতে পারেন?


উত্তর : স্বামী দেনমোহর পরিশোধ না করলে স্ত্রী স্বামীর সম্পত্তি নিজ দখলে রাখতে পারেন । স্বামী জীবিত থাকা অবস্থায় কোন স্ত্রী কোন সম্পত্তি দখলে রাখলে এবং স্বামীর মৃত্যুর পর স্ত্রী ঐ সম্পত্তির দখল ভোগ করতে থাকলে, তার দখলটি বৈধ ও আইনসম্মত হবে। স্ত্রী দখলকৃত সম্পত্তির খাজনা, লাভ বা আয় থেকে দেনমোহরের টাকা আদায় করতে পারবে । এ সময়ে কেউ তাকে দখল থেকে উচ্ছেদ করে, সে দখল উদ্ধারের মামলা করতে পারবে।

প্রশ্ন : দেনমোহর সংক্রান্ত মামলা কোথায় দায়ের করা যায় ?

উত্তর : দেনমোহর সংক্রান্ত মামলা স্থানীয় সহকারী জজ আদালতে দায়ের করতে হবে। এ আদালত ১৯৮৫ সাল থেকে পারিবারিক আদালত হিসেবে কাজ করছে। স্ত্রী যে এলাকায় বসবাস করেন সে এলাকার পারিবারিক আদালতে দেনমোহর সংক্রান্ত মামলা করতে পারেন।

ধন্যবাদান্তে,

জুরিস্ট কমিউনিকেশন ল ফার্ম

মোবাইলঃ 01886012863

ইমেইলঃ juristcommunication@gmail.com



Leave a Reply