বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আপীল বিভাগ এর সিদ্ধান্তই এই দেশের বিচার ব্যবস্থার চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত।

বাংলাদেশ সুপ্রীম কোটের্র দুইটি বিভাগ রয়েছে। ১. হাইকোর্ট বিভাগ ২. আপীল বিভাগ। তবে বিচার ও সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে আপীল বিভাগই হলো বাংলাদেশের বিচার ব্যবস্থার সবোর্চ্চ আদালত। এবং এই আপীল বিভাগের রায়ই হলো চুড়ান্ত রায়। এই রায়ের বিরুদ্ধে আর কোন আইনী প্রতিকার নেই। অর্থাৎ এই রায়ের বিরূদ্ধে কোন প্রকার আপীল, রিভিউ, রিভিশন কোন কিছুই চলবে না।

মূলত হাইকোর্ট বিভাগের রায়ের বিরূদ্ধে ক্ষেত্রবিশেষে আপীল বিভাগে অথার্ৎ দেশের এই সবোর্চ্চ আদালতে আপীল করার সুযোগ আছে। এবং এই কোর্ট যে রায় দিবে তাই চুড়ান্ত রায়। বাংলাদেশের আইনে এই আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আর কোথাও যাওয়ার কোন সুযোগ নেই।

বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আপীল বিভাগ পূর্ব পাকিস্তানের সময়ও দেশের সবোর্চ্চ আদালত ছিল। এটি ১৯৪৭ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।

আপীল বিভাগ এর বিচারপতিগনঃ

বাংলাদেশ সুর্প্রীম কোর্টের আপীল বিভাগ বর্তমানে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে প্রধান বিচারপতি সহ মোট ৭ জন বিচারপতি নিয়ে ঘঠিত।

বিচারপতিগন হলেনঃ

১. মাননীয় প্রধান বিচারপতিঃ বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসাইন

২. বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী

৩. বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী

৪. বিচার মির্জা হোসাইন হায়দার

৫. বিচারপতি জিনাত আরা

৬. বিচারপতি আবু বক্কর সিদ্দিকী

৭. বিচারপতি মোঃ নুরুজ্জামান

উপরোক্ত ৭ জন বিচারপতির সমন্বয়ে বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট এর আপিল বিভাগ পরিচালিত হয়। এবং হাইকোর্ট বিভাগের রায় বা আদেশের বিরুদ্ধে আপীল বিভাগে আপীল করা যায়। তবে সে জন্য প্রথমেই লীভ টু আপীল করতে হয়।

Leave a Reply